এইমাত্র পাওয়া

  • কাপ জিতেই ছাড়ব, জন্মদিনে শপথ মেসির
  • প্রাথমিকে ১২ হাজার শিক্ষক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি জুলাইয়ে, থাকছে ৬০% নারী কোটা
  • ঝালকাঠিতে সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন ধ্রুবতারা’র দোয়া ও ইফতার অনুষ্ঠান
  • ঝিনাইদহে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন সম্পর্কে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে সেমিনার
  • দেশের কোথাও কোথাও হালকা থেকে মাঝারি অথবা বজ্রবৃষ্টি হতে পারে
  • ফাঁটা পায়ের যত্নে কিছু পরামর্শ !!
  • ডায়াবেটিস রোগীরা কি রোজা রাখতে পারবে?
  • ওজন কমাবে কালো জিরা
  • হলুদ দাঁতের সমস্যা সমাধান করুন নিমিষেই
  • কিশিমিশের পানি খেলে যে উপকার পাবেন
Updated

খবর লাইভ

সিলেটের ঐতিয্য সাতকড়ার আচার তৈরির রেসিপি

27 September 2016 01:09:59 PM 27082561 ভোট:5/5 1 Comments
Star ActiveStar ActiveStar ActiveStar ActiveStar Active
সিলেটের ঐতিয্য সাতকড়ার আচার তৈরির রেসিপি

যে কয়েকটি জিনিসের নাম শোনামাত্র সিলেটের ছবি যে কারো মানসপটে ভেসে ওঠে, তার একটি সাতকড়া। লেবু গোত্রীয় এ ফল সিলেট অঞ্চলে ব্যাপক সমাদৃত। ভিন্ন স্বাদের এ ফলের জনপ্রিয়তা দেশের গণ্ডি পেরিয়ে এখন বিশ্বময়। সারা বছর ছাড়াও কোরবানির ঈদের সময় সাতকড়ার চাহিদা থাকে সবচেয়ে বেশি। সাতকড়ার বৈজ্ঞানিক নাম Citrus macroptera var. assamensis।

দেখতে চ্যাপ্টা গোলাকার, হলদে-সবুজ রঙের পুরু খোসা, শাঁসের পরিমাণ তুলনামূলক কম। দেখতে অনেকটা কমলালেবুর মতো। কিছুটা টক-তিতা স্বাদের। ভেতরে কমলালেবুর মতো সাতটি কড়া রয়েছে। স্থানীয়ভাবে এটি হাতকড়া নামে পরিচিত। এটি সাইট্রাস গোত্রের অন্তর্ভুক্ত। বৃহত্তর সিলেটের বিভিন্ন পাহাড়ি অঞ্চলে এর চাষ হয়। তবে সাতকড়া ভারতের আসাম রাজ্যের পাহাড়ি এলাকার আদি ফল।

প্রাচীনকাল থেকে স্থানীয় আদিবাসীরা এটি রান্না এবং ওষুধ হিসেবে ব্যবহার করে আসছেন। সাতকড়ায় আছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি, ক্যালসিয়াম ও ফসফরাস। বিফ সাতকড়া কিভাতে তৈরি করবেন জানতে সাতকড়া সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হয় মাংস রান্নায়। মাংসের সঙ্গে রান্না করলে ভিন্ন রকম স্বাদ ও ঘ্রাণ পাওয়া যায়। সাতকড়া এবং গরুর পায়ের হাড় দিয়ে জনপ্রিয় খাট্টা (টক জাতীয় রান্না) তৈরি করা হয়। তবে মাংস ছাড়াও মাছসহ বিভিন্ন ধরনের সবজি রান্নায়ও সাতকড়া ব্যবহৃত হয়। সাতকড়ার খোসা দিয়ে নানা স্বাদের মুখরোচক আচার তৈরি হয়।

সাতকড়ার খোসা শুকিয়ে, ভাপ দিয়ে ফ্রিজে দীর্ঘদিন রেখে খাওয়া যায়। প্রতিবছর কোরবানির ঈদের সময় সাতকড়ার ব্যবহার সবচেয়ে বেশি হয়। এখন সাতকড়ার মৌসুম হলেও এবার প্রতি হালি সাতকড়া ২০০ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হয়েছে। একটা সময় সাতকড়ার সুবাস সিলেটে সীমাবদ্ধ ছিল। তবে এখন তা দেশব্যাপী বিস্তৃত। মেহমান আপ্যায়নে সাতকড়ার এমন চাহিদা যে বাইরে থেকে সিলেটে বেড়াতে আসা ভোজনরসিকরা আগেই নিশ্চিত করে নেন খাবারে সাতকড়ার উপস্থিতি। তবে সাতকড়া রান্না করা একটু জটিল। পরিমাণে এদিক-সেদিক হলে রান্না বিস্বাদ হয়ে যায়।

অভিজ্ঞতা ছাড়া সাতকড়া রান্না করা নিয়ে অনেক মজাদার ঘটনা রয়েছে। সাতকড়ার আচার উপকরণ: সাতকড়া-২-৩টি, সিরকা-২ কাপ, লবণ-৮ কাপ, সরিষার তেল-১ কাপ, রসুন বাটা-আড়াই চা চামচ, সরিষা বাটা-২ টেবিল চামচ, মরিচ গুঁড়া-৩ চা চামচ, পাঁচফোড়ন গুঁড়া-দেড় চা চামচ প্রণালি: সাতকড়া ভালোভাবে ধুয়ে বাতাসে শুকিয়ে নিন। টুকরা করে কাটুন। একটি মাটির পাত্রে সাতকড়া টুকরো, লবণ ও সিরকা মিশিয়ে কড়া রোদে দিন তিন-চার দিন। একটি পাত্রে সরিষার তেল গরম করুন। তাতে রসুন বাটা দিয়ে নাড়তে থাকুন। রসুন একটু ভাজা হলে তাতে একে একে বাকি মসলাগুলো দিয়ে কষান। সিরকা থেকে শুধু সাতকড়ার টুকরোগুলো নিয়ে ওই তেলে ছাড়ুন। ভালো করে কষান। লবণ মেশান। সিরকা স্বাদ অনুযায়ী মেশান। তেল ওপরে ভেসে উঠলে নামিয়ে নিন। সূত্র: গওহর আফজা

সিলেটের রপ্তানি পণ্যের মধ্যে সাতকড়া অন্যতম। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে ছড়িয়ে থাকা প্রবাসী সিলেটিরা বিদেশ-বিভুঁইয়ে সাতকড়াকে পরিচিত করে তুলেছেন। তাই দিন দিন সাতকড়ার রপ্তানি বাড়ছে, বিশেষ করে ইংল্যান্ডে এর বিশাল চাহিদা রয়েছে। তাছাড়া প্রবাসী আত্মীয়-স্বজনকে সিলেটের মানুষ প্রতিনিয়তই সাতকড়া পাঠিয়ে থাকেন। দেশে বেড়াতে এলে যাওয়ার সময় প্রবাসীরা সাতকড়া সঙ্গে নিতে ভোলেন না। এমন কোনো সিলেটি মা পাওয়া যাবে না, যার সন্তান বিদেশে থাকে, অথচ তাকে তিনি হাতকড়া পাঠাননি।

Loading...
advertisement
সর্বশেষ সংবাদ
এ বিভাগের সর্বশেষ