এইমাত্র পাওয়া

  • কাপ জিতেই ছাড়ব, জন্মদিনে শপথ মেসির
  • প্রাথমিকে ১২ হাজার শিক্ষক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি জুলাইয়ে, থাকছে ৬০% নারী কোটা
  • ঝালকাঠিতে সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন ধ্রুবতারা’র দোয়া ও ইফতার অনুষ্ঠান
  • ঝিনাইদহে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন সম্পর্কে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে সেমিনার
  • দেশের কোথাও কোথাও হালকা থেকে মাঝারি অথবা বজ্রবৃষ্টি হতে পারে
  • ফাঁটা পায়ের যত্নে কিছু পরামর্শ !!
  • ডায়াবেটিস রোগীরা কি রোজা রাখতে পারবে?
  • ওজন কমাবে কালো জিরা
  • হলুদ দাঁতের সমস্যা সমাধান করুন নিমিষেই
  • কিশিমিশের পানি খেলে যে উপকার পাবেন
Updated

খবর লাইভ

সরকারের কোন খাতে কত লোক নিয়োগ দেয়া হবে জেনে নিন

০১ এপ্রিল ২০১৬ ০৪:০৪:১০ এএম 41907786 ভোট:5/5 1 Comments
Star ActiveStar ActiveStar ActiveStar ActiveStar Active
সরকারের কোন খাতে কত লোক নিয়োগ দেয়া হবে জেনে নিন

সরকারের প্রায় সব মন্ত্রণালয়, বিভাগ, অধিদফতর ও পরিদফতরে নিয়োগের হিড়িক লেগেছে। কোন কোন খাতে কত লোক নিয়োগ দেয়া হবে যেনে নিন.

সরকার চলতি বছর(২০১৬) সালে সরকারি চাকরিতে ৭০ হাজার পদে জনবল নিয়োগ দেওয়ার প্রক্রিয়া হাতে নিয়েছে। এই কাজের আওতায় সরকারের তিন লাখ শূন্যপদের বিপরীতে এই জনবল নিয়োগের কার্যক্রম চলছে। সরকারের প্রায় সব মন্ত্রণালয়, বিভাগ, অধিদফতর ও পরিদফতর, ব্যাংক গুলাতে নিয়োগের হিড়িক পরে গেছে অনেক আগেই । সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, শূন্যপদ পূরণে সরকারের উচ্চ পর্যায় থেকে চাপ থাকলেও বিভিন্ন জটিলতার কারণে পদগুলো পূরণ হচ্ছে না। আগামী ২০১৯ সালের জাতীয় নির্বাচনের আগেই সরকার কর্মসংস্থান তৈরিতে বিশেষ নজর দিচ্ছে। তারই ধারাবাহিতকায় এ বছর এই নিয়োগ কার্যক্রম শুরু হয়েছে। চলতি বছর সবচেয়ে বেশি নিয়োগ পাবে পুলিশে, যা প্রায় ২০ হাজার। এরপরই রয়েছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ চাকরি খাত রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান, যেখানে নিয়োগ পাবে প্রায় ১৫ হাজার জনবল। সরকারি চাকরির আরেক বড় খাত স্বাস্থ্য। এই খাতে প্রায় ১২ হাজার জনবল নিয়োগ দেওয়া হবে, যার মধ্যে পাঁচ হাজার নার্স রয়েছে। বিসিএসের মাধ্যমে এ বছরের মধ্যেই নিয়োগ দেওয়া হবে প্রায় চার হাজার জনবল। এছাড়া সরকারের প্রাথমিক গণশিক্ষা, অর্থ, আইন, কৃষি, খাদ্য, প্রতিরক্ষা ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ অধিদফতর ও সংস্থাগুলোতে আরও প্রায় ২৩ হাজার জনবল নিয়োগ দেওয়া হবে। এসব নিয়োগের কার্যক্রম চলমান রয়েছে।জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা আছে, শূন্যপদগুলো দ্রুত পূরণ করতে হবে। সেজন্য  মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলো শূন্যপদ পূরণের জন্য ব্যবস্থা নিচ্ছে। তবে সব শূন্যপদ একসঙ্গে পূরণ করা সম্ভব নয়। কারণ কোটা পূরণ করতে হয়। এছাড়া পর্যায়ক্রমে লোক নিয়োগ হচ্ছে ও পদও খালি হচ্ছে, অনেকেই অবসরে যাচ্ছেন।জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, সরকারি চাকরিতে শূন্যপদ রয়েছে ৩ লাখ ২ হাজার ৯০৪টি। সরকারি চাকরিজীবীদের নতুন পে-স্কেল অনুযায়ী, নবম গ্রেডে (প্রথম শ্রেণির) ৩৯ হাজার ৫৬৪টি, ১০-১২ গ্রেডের (দ্বিতীয় শ্রেণি) ৩০ হাজার ৪২২টি, ১৩-১৭ গ্রেডের (তৃতীয় শ্রেণির) ১ লাখ ৬৩ হাজার ৪১৭টি এবং ১৮-২০ গ্রেডের (চতুর্থ শ্রেণি) ৬৯ হাজার ৫০১টি শূন্যপদ আছে।সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের চাহিদা অনুযায়ী, সরকারি কর্মকমিশনের (পিএসসি) মাধ্যমে নবম ও ১০-১২ গ্রেডের (প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির) শূন্যপদে জনবল নিয়োগ দিয়ে থাকে। এছাড়া ১৩-২০তম গ্রেড (তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণি) পদে নিজ নিজ দফতর ও সংস্থার নিয়োগবিধি অনুযায়ী, সংশ্লিষ্ট দফতর জনবল নিয়োগ দেয়। সরকারি ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের নিয়োগের জন্য কাজ করছে বাংলাদেশ ব্যাংকের ‘ব্যাংকার সিলেকশন কমিটি’ (বিএসসি)। চলতি বছর থেকে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির নিয়োগ দেবে বিএসসি।পুলিশে ২০ হাজার নিয়োগ : পুলিশের সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, গত ফেব্রুয়ারি মাসে পুলিশের ট্রেইনি কনস্টেবল পদে ১০ হাজার জনকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া বিভিন্ন পদে আরও তিন হাজার জনবল নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী, ৫০ হাজার পুলিশ সদস্য আগামী ২০১৭ সালের মধ্যে নিয়োগ দেওয়া হবে। তারই ধারাবাহিকতায় চলতি বছরের আগস্ট বা সেপ্টেম্বরে আরও ১০ হাজার এবং ডিসেম্বরে আরও ১০ হাজার জনবল নিয়োগ দেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে। এজন্য পুলিশ সদর দফতর থেকে পাঠানো প্রস্তাবের পরিপ্রেক্ষিতে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পদ সৃষ্টির কাজ করছে। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পদ সৃষ্টি করার পর অর্থ মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন নিতে হবে।জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তা জানান, পুলিশের আরও ৩৭ হাজার পদ সৃষ্টির কাজ চলছে। তার মধ্যে ১০ হাজার পদ সৃষ্টির কাজ প্রায় শেষের দিকে। আরও ১০ হাজার পদ সৃষ্টির অনেকটা এগিয়েছে। আশা করা যাচ্ছে, আগামী মাসের মধ্যেই শেষ হবে। এরপর অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক অনুমোদনের জন্য পাঠানো হবে।

সরকারি ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে ১৫ হাজার নিয়োগ : ২০১৬ সালকে সরকারি ব্যাংকে চাকরির বছর বলা হচ্ছে। কারণ চলতি বছরে সরকারি ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে সবচেয়ে বেশি জনবল নিয়োগ দেওয়া হবে। রাষ্ট্রায়ত্ত সোনালী, জনতা, অগ্রণী, রূপালী, বিডিবিএল, বাংলাদেশ কৃষি, প্রবাসী কল্যাণ, কর্মসংস্থান ও আনসার ভিডিপি ব্যাংকে প্রায় ১২ হাজার শূন্যপদে নিয়োগের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এছাড়া সরকারের বিনিয়োগ বোর্ড ও ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশনসহ অন্য আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোতে চলতি বছরে ৩ হাজার জনবল নিয়োগ দেওয়া হবে।গত কয়েক বছরে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোতে নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগ ওঠায় গভর্নরকে প্রধান করে বাংলাদেশ ব্যাংকের ব্যাংকার সিলেকশন কমিটি (বিএসসি) গঠন করা হয়। সরকারের ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে নিয়োগের সার্বিক কার্যক্রম পালন করবে বাংলাদেশ ব্যাংক গঠিত বিএসসি। ১৫ হাজার জনবল নিয়োগের চাহিদাপত্র বিএসসির কাছে দেওয়া হয়েছে। আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে এসব চাহিদার জনবল নিয়োগ চূড়ান্ত করবে বিএসসি। এই নিয়োগ প্রক্রিয়া ইতোমধ্যেই শুরুও করেছে তারা। সোনালী ব্যাংকের অফিসার ক্যাশ, অফিসার ও সিনিয়র অফিসার পদে ২২৭৬ জনকে নিয়োগের জন্য আবেদনপত্র আহ্বান করা হয়েছে। জনতা ব্যাংকে প্রায় ২৫০০ জনবল নিয়োগ দেওয়া হবে, যার মধ্যে নির্বাহী অফিসার পদে ৮৩৪ এবং সহকারী নির্বাহী অফিসারের ৪৪৬টি পদের জন্য আবেদনপত্র আহ্বান করা হয়েছে। রূপালী ব্যাংকে প্রায় ১৫০০, অগ্রণী ব্যাংকে প্রায় ১২০০, বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকে প্রায় ২৬০০, রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংকে ৪৫০ জনকে নিয়োগ দেওয়া হবে। বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক লিমিটেডে ৩৫০ জন নিয়োগ দেওয়া হবে। পর্যায়ক্রমে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে এসব পদে নিয়োগের আবেদনপত্র আহ্বান করা হবে।

স্বাস্থ্য খাতে ১২ হাজার নিয়োগ পাচ্ছে : স্বাস্থ্য খাতে বর্তমানে ৩৫ হাজার পদ শূন্য রয়েছে। তার মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হল নার্স পদে শূন্যতা।প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ মোতাবেক ৫ হাজার নার্স নিয়োগের প্রক্রিয়া চলমান। আগামী জুলাই বা আগস্টের মধ্যেই নার্সদের নিয়োগ দেওয়া হবে। এক্ষেত্রে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে আরও নার্স নিয়োগের জন্য পদ সৃষ্টির প্রক্রিয়া চলছে।স্বাস্থ্য অধিদফতরের বিভিন্ন জেলায় ৪৪টি পদে মোট ৪৮০ জনকে নিয়োগ দেওয়ার জন্য ইতোমধ্যেই আবেদনপত্র আহ্বান করা হয়েছে। এছাড়া চলতি বছরেই স্বাস্থ্য পরিদর্শকসহ বিভিন্ন পদে আরও সাড়ে ৬ হাজার জনবল নিয়োগ দেওয়া হবে। শূন্য পদ পূরণে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে স্বাস্থ্য অধিদফতরসহ সংশ্লিষ্ট দফতরে বিশেষ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

বিসিএসে ৪ হাজার নিয়োগ : বাংলাদেশ সরকার চলতি ৩৪ ও ৩৫তম বিসিএস পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের নিয়োগ দেবে। ৩৪তম বিসিএসে ২১৫৯ জনকে নিয়োগ দেওয়া হবে। তাদের গোয়েন্দা প্রতিবেদন যাচাই-বাছাই প্রায় শেষ পর্যায়ে। আগামী মাসেই তারা নিয়োগপত্র হাতে পাবেন। ৩৫তম বিসিএসের ভাইভা চলছে। আগামী জুনের ৩৫তম বিসিএসের ১৮০৩টি পদের জন্য ফল প্রকাশ করা হবে। ৩৫তম বিসিএসের চাকরি প্রার্থীরা আগামী নভেম্বরের মধ্যে নিয়োগ পাবেন। ৩৬তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা হয়েছে, আগামী মে বা জুন মাসে লিখিত পরীক্ষা হবে। ৩৬তম বিসিএসে ২০৮০ জনকে নিয়োগ দেওয়া হবে। ৩৭তম বিসিএসের আবেদন খুব শিগগিরই আহ্বান করা হবে।

Loading...
advertisement
সর্বশেষ সংবাদ
এ বিভাগের সর্বশেষ